Breaking News

প্রথমবারের মতো জার্মানিতে প্রকাশ্যে মাইকে আজান, শুনতে মানুষের ঢল



প্রথমবারের মতো প্রকাশ্যে মাইকে আজান দেয়ার অনুমতি দেয়া হয়েছে জার্মানিতে। গতকাল শুক্রবার বার্লিনের একটি মসজিদে মাইকে আজান দেয়ার সময় প্রচুর মানুষের সমাগম ঘটে।

প্রা’ণঘা তী করোনা ভাইরাসের কা’র’ণে মানুষের মনোবল বাড়াতে দেশটির চার্চগুলিতে প্রতিদিন সন্ধ্যায় ঘণ্টা বাজানো হয়। বিশ্বের যে কয়টি দেশে করোনাভাইরাসে আ’ক্রা’ন্তের সংখ্যা খুব দ্রুত বাড়ছে জার্মানি তার মধ্যে অন্যতম।

এদিকে ইউরোপের এ দেশটিতে এখন পর্যন্ত করোনাভাইরাস আ’ক্রা’ন্ত ৯১১৫৯ জন। আর মা রা গেছেন ১২৭৫ জন। এদিকে জার্মানিতে এখন পর্যন্ত ১২ জন বাংলাদেশি করোনা ভাইরাসে আ’ক্রা’ন্ত হয়েছেন।

করোনাভাইরাস মহামা”রীতে বিশ্বব্যাপী মৃ’’ত্যু সংখ্যা ৬০ হাজার ছাড়িয়ে গেছে। আন্তর্জাতিক জরিপ সংস্থা ওয়ার্ল্ডওমিটার্স জানিয়েছে, বিশ্বব্যাপী করোনাভাইরাসে আ’ক্রা’ন্ত হয়েছেন ১১ লাখ ৩০ হাজারেরও বেশি মানুষ। এর মধ্যে মৃ’’ত্যুবরণ করেছেন ৬০ হাজার ১৪৭জন মানুষ।

শনিবার বিকাল সাড়ে ৪টায় ওয়ার্ল্ডওমিটার্স ওয়েবসাইটে দেখা যায়, এ পর্যন্ত যুক্তরাষ্ট্রে ২ লাখ ৭৭ হাজারেরও বেশি মানুষ আ’ক্রা’ন্ত হয়েছেন। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশটিতে ৩৬১ জন মৃ’’ত্যুবরণ করেছেন। আর স্পেনে গত ২৪ ঘণ্টা ৫ হাজার ৫৩৭জন মানুষ মৃ’’ত্যুবরণ করেছেন।

ডিসেম্বরের শেষ দিকে চীনের হুবেইপ্রদেশের উহান শহরে এ ভাইরাসটি প্রথমে দেখা যায়। পরে ভাইরাসটি ম’হামা”রী আকারে বিশ্বের ১৯৯ দেশ ও অঞ্চলে ছড়িয়ে পড়ে।

বর্তমানে এ ভাইরাসটিতে সবচেয়ে বেশি সং’ক্র’মি’ত দেশ হিসেবে যুক্তরাষ্ট্র সবার ওপরে রয়েছে। আর মৃ’’ত্যুর দিক দিয়ে ইতালি এগিয়ে রয়েছে। এর পরেই অবস্থান স্পেনের। এদিক থেকে তৃতীয় অবস্থানে রয়েছে যুক্তরাষ্ট্র।

করোনায় আ’ক্রা’ন্তের সংখ্যায় যুক্তরাষ্ট্রই এখন সবার ওপরে। দেশটিতে দুই লাখ ৭৭ হাজার ১৬১ জনের দে”হে কোভিড-১৯ ধরা পড়েছে। মৃ’’তের সংখ্যা পৌঁছেছে ৭ হাজার ৩৯২ জনে।

করোনাভাইরাসে মৃ’’তের সংখ্যা সবচেয়ে বেশি এখনও ইতালিতে। শুক্রবার পর্যন্ত পর্যন্ত দেশটিতে মোট আ’ক্রা’ন্তের সংখ্যা এক লাখ ১৯ হাজার ৮২৭ জন, আর প্রাণ হারিয়েছেন ১৪ হাজার ৬৮১ জন।

করোনাভাইরাস সং’ক্র’ম’ণে স্পেনে মৃ”তের সংখ্যা ১১ হাজার ছাড়িয়েছে। আ’ক্রা’ন্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে এক লাখ ১১ হাজার ৭৪৪ জনে। ফ্রান্সে মোট মৃ’’ত্যু হয়েছে ৬ হাজার ৫০৭ জনের। আ’ক্রা’ন্ত হয়েছেন ৮২ হাজারেরও বেশি।

ইরানে এ পর্যন্ত মা রা গেছেন তিন হাজার ৪৫২ জন। আ’ক্রা’ন্ত হয়েছেন ৫৩ হাজার ১৮৩ জন। তবে এর মধ্যে ১৬ হাজার ৭১১ জন সুস্থ হয়েছেন। চীনে মৃ ত্যু হয়েছে ৩ হাজার ৩২৬।

প্রা’ণঘা তী করোনাভাইরাস প্র’তিরো’ধে একটি সুখবর দিয়েছে একদল বিজ্ঞানী। তারা দাবী করছেন এমন একটি ওষুধ পেয়েছেন যা ৪৮ ঘণ্টার মধ্যেই করোনাভাইরাস মে”রে ফেলতে সক্ষম। আর সে ওষুধটি বিভিন্ন দেশে উৎপাদন করা হচ্ছে। ওষুধটি মূলত অ্যান্টি-প্যারসিটিক বা পরজীবীনাশী।

মালয়েশিয়ার মোনাশ বায়োমেডিসিন ডিসকভারি ইনস্টিটিউট ও অস্ট্রেলিয়ার ডোহেরটি ইনস্টিটিউট অব ইনফেকশন অ্যান্ড ইম্যুনিটির যৌথ গবেষণায় এ ওষুধের খোঁজ মিলেছে। গবেষক দলের প্রধান ড. কেলি ওয়াগস্টাফ এক বিবৃতিতে শুক্রবার (৩ এপ্রিল) এ তথ্য জানান।

ড. কেলি বলেন, ‘গবেষণাকালে আমরা দেখতে পেয়েছি, অ্যান্টি-প্যারসিটিক ওষুধ ইভারমেকটিন ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে সার্স-করোনাভাইরাস-২-এর কোষের বৃদ্ধি থামিয়ে দিয়েছে। এমনকি মাত্র এক ডোজ ওষুধও ওই সময়ের মধ্যে সব ভা’ইরা’ল রিবাউন্সেলিক এসিড (আরএনএ, যেখানে সব জীবিত কোষ থাকে) কার্যকরভাবে দূর করতে পেরেছে। এমনকি ২৪ ঘণ্টার মধ্যেও উল্লেখযোগ্য মাত্রায় তা কমিয়ে ফেলতে পেরেছে।’

তিনি বলেন, ‘এ পরীক্ষা আমরা শুধু গবেষণাগারেই করেছি। কোনো প্রা’ণীদে”হে বা মানুষের শ’রী’রে তা পরীক্ষা করা হয়নি। এখন আমরা প্রা’ণীদে”হে এর পরীক্ষা চালাব। সেখানে ইতিবাচক ফল এলে ও নিরাপদ প্রমাণিত হলে আমরা যত দ্রুত সম্ভব আমরা মানবদে”হের জন্য ডোজ নির্ধারণ করে দেব।’