Breaking News

লকডাউনে ব্যাংক খোলার নতুন সিদ্ধান্ত আসছে



করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত ও মৃত্যু হার কমাতে আগামীকাল বুধবার থেকে সরকার ঘোষিত লকডাউনে বিশেষ প্রয়োজনে ব্যাংক খোলার নির্দেশনা আসছে। মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ মঙ্গলবার (১৩ এপ্রিল) বিশেষ প্রয়োজনে ব্যাংক সেবা প্রদানের অনুরোধ জানিয়ে কেন্দ্রীয় ব্যাংককে চিঠি দেয়। ওই চিঠি পাওয়ার পর কেন্দ্রীয় ব্যাংক এই সিদ্ধান্ত নিতে যাচ্ছে। এই নির্দেশনা অনুযায়ী, বিশেষে প্রয়োজনে ব্যাংকিং কার্যক্রম পরিচালনার জন্য ব্যাংক খোলা থাকবে।

মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের নির্দেশনায় বলা হয়, ১৪ এপ্রিল থেকে ২১ এপ্রিল পর্যন্ত ব্যাংকিং সেবা নিশ্চিত করার লক্ষ্যে প্রয়োজনীয় নির্দেশনা জারির জন্য আদেশক্রমে অনুরোধ।

এর আগে, গতকাল কেন্দ্রীয় ব্যাংক জানিয়েছিল, ১৪ থেকে ২১ এপ্রিল ব্যাংক শাখা বন্ধ থাকবে। তবে বন্দর এলাকার ব্যাংক শাখা খোলা রাখা যাবে।

লকডাউনে এটিএম বুথে বড় সুবিধা চালু
করোনাভাইরাসের সংক্রমণ সামাল দিতে বুধবার থেকে যে এক সপ্তাহের লকডাউন দিয়েছে সরকার, সেই সময়ে সব ব্যাংক বন্ধ থাকবে। ১৪ এপ্রিল ভোর ৬টা থেকে ২১ এপ্রিল মধ্যরাত পর্যন্ত এ নিষেধাজ্ঞা কার্যকর থাকবে। লকডাউনের সময়কালে গণপরিবহন, সব সরকারি, আধা সরকারি, স্বায়ত্বশাসিত, বেসরকারি অফিসের পাশাপাশি বন্ধ থাকবে ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠান।

তবে এ সময় ব্যাংকের এটিএম বুথ থেকে কার্ড দিয়ে এককালীন এক লাখ টাকা তোলা যাবে। গ্রাহকদের সুবিধার কথা বিবেচনা করে এ সিদ্ধান্ত নিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক। বর্তমানে অধিকাংশ ব্যাংকের এটিএম বুথ থেকে দিনে সর্বোচ্চ ৫০ হাজার টাকা এবং কিছু ব্যাংক কিছু বেশি টাকা উত্তোলন করা যায়। নিজ ব্যাংক বা অন্য ব্যাংকের বুথের ক্ষেত্রেও একই শর্ত প্রযোজ্য হবে। সোমবার (১২ এপ্রিল) রাতে বাংলাদেশ ব্যাংকের এক প্রজ্ঞাপনে এ সংক্রান্ত আদেশ জারি করা হয়েছে। সর্বাত্মক লকডাউনের’ শুরুর আগে দিন হওয়ায় মঙ্গলবার ব্যাংকিং খাতে চাপ বাড়তে পারে বলে বাংলাদেশ ব্যাংক এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এই কারণে এদিন ৩টায় লেনদেন শেষ হয়ে ব্যাংক খোলা থাকবে বিকেল পাঁচটা পর্যন্ত।সোমবারও (১২ এপ্রিল) দেশের সকল ব্যাংক বেলা একটা পর্যন্ত চললেও, মঙ্গলবার লেনদেনের সময় বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক।

বাংলাদেশ ব্যাংকের মহাব্যবস্থাপক ও সহকারী মুখপাত্র আনোয়ারুল ইসলাম গণমাধ্যমকে জানান, পরিস্থিতি বিবেচনায় মঙ্গলবার লেনদেনের সময় বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে কেন্দ্রিয় ব্যাংক। বেলা তিনটা পর্যন্ত গ্রাহক ব্যাংকিং লেনদেন করতে পারবে। সোমবার বাংলাদেশ ব্যাংকের এক প্রজ্ঞাপনে জানানো হয়েছে, বিধিনিষেধ চলাকালে সাধারণ জনগণের চাহিদা মোতাবেক নগদ অর্থের সরবরাহ নিশ্চিতের জন্য এটিএম বুধগুলো সচল ও তাতে পর্যাপ্ত অর্থ সরবরাহের ব্যবস্থা করতে হবে। এ ছাড়া মোবাইল মোবাইল ব্যাংকিং সেবা প্রদান ও নগদ অর্থের সরবরাহ নিশ্চিত করতে হবে।

গত এক সপ্তাহ ধরে চলমান লকডাউনে ব্যাংকগুলো সীমিত পরিসরে খোলা রয়েছে। সেক্ষেত্রে আগের নির্দেশনা অনুযায়ী মঙ্গলবার ব্যাংকে লেনদেন হবে সকাল ১০টা থেকে বেলা ১টা পর্যন্ত। নতুন নির্দেশনায় আমদানি-রপ্তানি বাণিজ্যের স্বার্থে বন্দর ও সীমান্ত এলাকার ব্যাংক শাখা খোলা রাখার বিষয়ে বন্দর ও শুল্ক কর্তৃপক্ষের সঙ্গে আলোচনা করে ব্যবস্থা গ্রহণ করতে বলা হয়েছে। এছাড়া বলা হয়েছে, ব্যাংকিং সেবা প্রদানের ক্ষেত্রে স্ব স্ব ব্যাংক প্রয়োজনীয়তার নিরিখে সংশ্লিষ্ট অনুমোদিত ডিলার (এডি) শাখা এবং প্রধান কার্যালয়ের সংশ্লিষ্ট বিভাগ সীমিত সংখ্যক জনবল দ্বারা খোলা রাখতে পারবে। এটিএম বুথ নিয়ে বলা হয়েছে, এটিএম ও কার্ডের মাধ্যমে লেনদেন চালু রাখার সুবিধার্থে সংশ্লিষ্ট প্রশাসনের সহায়তায় এটিএম বুথগুলোতে পর্যাপ্ত নোট সরবরাহসহ প্রযোজ্য ক্ষেত্রে ইন্টারনেট ব্যাংকিং সুবিধা সার্বক্ষণিক চালু রাখার প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিশ্চিত করতে হবে।

গতবছরের শেষে এবং এবছরের শুরুতে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ কমে যেতে থাকলেও মার্চ থেকে সংক্রমণ বাড়তে থাকে। এরপর গত ৫ এপ্রিল ভোর ৬টা থেকে সাত দিনের লকডাউন বা বিধি-নিষেধ জারি করে সরকার। জরুরি প্রয়োজনে সীমিত পরিসরে অফিস চালু রেখে এই বিধি-নিষেধের মেয়াদ ১১ এপ্রিল রাত ১২টায় শেষ হচ্ছে। এ নিয়ে গত ৪ এপ্রিল মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়। এরপর তা ১৪ এপ্রিল ভোর ৬টা পর্যন্ত বর্ধিত করা হয়।