Breaking News

লকডাউনে কি রিকশাও বন্ধ থাকবে?



করোনাভাইরাসের সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে ১৪ এপ্রিল থেকে ২১ এপ্রিল পর্যন্ত সার্বিক কার্যাবলী/চলাচলের ওপর আট দিনের বিধিনিষেধ দিয়েছে সরকার।

প্রজ্ঞাপনে বলা হয়েছে, সব ধরনের পরিবহন (সড়ক, নৌ, অভ্যন্তরীণ ও আন্তর্জাতিক ফ্লাইট) বন্ধ থাকবে। তবে পণ্য পরিবহন, উৎপাদন ব্যবস্থা ও জরুরি সেবাদানের ক্ষেত্রে এ আদেশ প্রযোজ্য হবে না।

এই অবস্থায় রাজধানীর ১২ লাখ রিকশা চলবে কিনা তা নিয়ে প্রশ্ন দেখা দিয়েছে। সংশ্লিষ্টদের মতে, সব ধরনের পরিবহনের মধ্যে রিকশাও পড়ে। প্রজ্ঞাপন অনুযায়ী রিকশাও চলবে না।

সর্বাত্মক বিধিনিষেধ আরোপ করে জারি করা প্রজ্ঞাপনে বলা হয়েছে অতি জরুরি প্রয়োজন ছাড়া কোনওভাবেই বাড়ির বাইরে বের হওয়া যাবে না।

ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা এ বি এম আমিন উল্লাহ নুরী গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন, সরকারি সিদ্ধান্ত অনুযায়ী সব ধরণের পরিবহন বন্ধ থাকবে। অতি জরুরি প্রয়োজন ছাড়া কোনওভাবেই বাড়ির বাইরে বের হওয়া যাবে না। সরকারের নির্দেশনা অনুযায়ী আমরা কাজ করবো।

মঙ্গলবার থেকে রোজা রাখছেন ভোলার ১০ গ্রামের মানুষ
সৌদি আরবের সংগে মিল রেখে ভোলার ১০টি গ্রামের মানুষ মঙ্গলবার (১৩ এপ্রিল) থেকে রোজা রাখবেন।

সোমবার (১২ এপ্রিল) রাতে ভোলা সদর, বোরহানউদ্দিন, লালমোহন, তজুমদ্দিন, চরফ্যাশন ও মনপুরা উপজেলার সুরেশ্বরী দরবার শরিফ ও সাত কানিয়া মির্জাখীল দরবার শরিফের অনুসারীরা তারাবির নামাজ পড়েন।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছেন, বিগত বছরগুলোর মতো এবারও ওই গ্রামগুলোর মানুষ সৌদি আরবের সংগে মিল রেখে রোজা রাখবেন তারা।

বোরহানুদ্দিনের পইক্ষা ইউনিয়নের একটি মসজিদের পেশ ইমাম ফখরুল আলম বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, রাতে আমরা তারাবি পড়েছি। শেষ রাতে সেহরি খেয়ে আগামীকাল থেকে রোজা রখবো।