Breaking News

কোরআনের আয়াত অপসারণের রিট খারিজ, আবেদনকারীর জরিমানা



পবিত্র কোরআন শরীফ থেকে ২৬টি আয়াত অপসারণ চেয়ে করা রিট খালিজ করে দিয়েছেন ভারতের সুপ্রিম কোর্ট। সোমবার (১২ এপ্রিল) বিচারপতি আরএফ নরিমনের নেতৃত্বাধীন বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

সম্প্রতি আদালতে ওই রিট দায়ের করেছিলেন দেশটির উত্তরপ্রদেশের শিয়া ওয়াকফ বোর্ডের সাবেক চেয়ারম্যান সৈয়দ ওয়াসিম রিজভী।

ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, সোমবার রিট আবেদনটিকে ‘বাজে’ বলে আখ্যায়িত করেন বিচারক। একইসংগে পিটিশন দাখিল করার ব্যয় হিসাবে আবেদনকারীকে ৫০ হাজার ভারতীয় রুপি ক্ষতিপূরণ দিতে নির্দেশ দেন আদালত।

রিট আবেদনে বলা হয়েছে, পবিত্র কোরআন শরীফের কিছু আয়াতের কারণে ইসলাম ধর্ম ধীরে ধীরে তার মূল শিক্ষাগুলো থেকে দূরে সরে যাচ্ছে, যা আজকাল সহিংস আচরণ, জঙ্গিবাদ, মৌলবাদ, চরমপন্থা ও সন্ত্রাসবাদের মাধ্যমে চিহ্নিত হচ্ছে। তাই আয়াতগুলো অপসারণের আবেদন জানাচ্ছি।

রিটে আবেদনে আয়াত নাম্বারগুলোর কথাও উল্লেখ করা হয়।

১৪ এপ্রিল থেকে জরুরি চলাচলে লাগবে ‘মুভমেন্ট পাস’
আগামী ১৪ এপ্রিল থেকে ২১ এপ্রিল পর্যন্ত করোনা ভাইরাসের সংক্রমণরোধে কঠোর বিধিনিষেধ আরোপ করে প্রজ্ঞাপন জারি করেছে সরকার। এতে বলা হয়েছে, অতি জরুরি প্রয়োজন ছাড়া কোনোভাবেই বাড়ির বাইরে বের হওয়া যাবে না।

এই কঠোর নিষেধাজ্ঞার মধ্যে যদি কাউকে জরুরি প্রয়োজনে বাইরে যেতে হয় তবে আগে থেকে সংগে থাকতে হবে পুলিশের ‘মুভমেন্ট পাস’। পাস দেওয়ার সকল আয়োজন সম্পন্ন করেছে বাংলাদেশ পুলিশ।

বাংলাদেশ পুলিশ হেডকোয়াটার্স সূত্রে জানা গেছে, বাইরে যেতে ইচ্ছুক সব ব্যক্তিকে এই পাস দেয়া হবে না। শুধু মাত্র অতি জরুরি কাজে বের হতে হবে এবং জরুরি সেবার কাজে নিয়োজিত সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদেরকে এই পাস দেওয়া হবে।

বাংলাদেশ পুলিশ সদর দফতরের আইসিটি উইংয়ের সমন্বয়ে পরিচালিত হবে এই ‘মুভমেন্ট পাস’ কার্যক্রম। জরুরি পণ্য পরিবহন, সেবাদাতা, ব্যবসায়ী ও চাকরিজীবীদের যাচাই-বাছাই করেই দেওয়া হবে এই পাস।

কারা পাবেন এই পাস?
পুলিশ সদর দফতর সূত্রে জানা গেছে, জরুরি কাজে নিয়োজিত ব্যক্তিদেরকেই এই পাস দেয়া হবে। এজন্য অ্যাপস ও ওয়েবসাইট রয়েছে, যেখানে প্রবেশ করলে একাধিক ক্যাটাগরি থাকবে। যেমন- মুদি দোকানে কেনাকাটা, কাঁচাবাজার, ওষুধপত্র, চিকিৎসা কাজে নিয়োজিত, কৃষিকাজ, পণ্য পরিবহন ও সরবরাহ, ত্রাণ বিতরণ, পাইকারি/খুচরা ক্রয়, পর্যটন, মৃতদেহ সৎকার, ব্যবসা এবং অন্যান্য নামের ক্যাটাগরি দেওয়া থাকবে। এই ক্যাটাগরির যেকোনো একটিতে ক্লিক করে আবেদন করলে পুলিশ প্রয়োজন যাছাই করে পাস প্রদান করবে।

যাদের বাইরে চলাফেরা প্রয়োজন কিন্তু ওয়েবসাইটে উল্লেখিত কোনো ক্যাটাগরিতেই পড়েন না, তাদের অন্যান্য ক্যাটাগরিতে পাস দেওয়ার বিষয়টি বিবেচনা করবে পুলিশ।

এই বিষয়ে জানতে চাইলে বাংলাদেশ পুলিশের সহকারি মহাপরিদর্শক (এআইজি-গণমাধ্যম) মো. সোহেল রানা বাংলাভিশন ডিজিটালকে বলেন, সারাদেশে সরকারি কঠোর নিষেধাজ্ঞা বাস্তবায়নে বাংলাদেশ পুলিশ ‘মুভমেন্ট পাস’ নামে একটি অ্যাপস এবং ওয়েবসাইট চালু করেছে। আগামীকাল মঙ্গলবার (১৩ এপ্রিল) আমাদের পুলিশ মহাপরিদর্শক (আইজিপি) এটির আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করবেন। উদ্বোধনের পর সবার জন্য এটি উন্মুক্ত হয়ে যাবে।

পুলিশের মুভমেন্ট পাসটি পেতে আবেদনের জন্য ক্লিক করুন https://movementpass.police.gov.bd/ এ ঠিকানায়।