Breaking News

এ বছর বহু আলেম-ওলামা ও পীর মাশায়েখ হারিয়েছি আমরা

২০২০ সাল নানা কারণেই আমাদের কাছে অবিস্মরণীয় হয়ে থাকবে। বৈশ্বিক মহামারী করোনাভাইরাসের তাণ্ডবের পাশাপাশি এটি ছিল নক্ষত্র ঝরে পড়ার বছর। এ বছর আমরা হারিয়েছি বহু আলেম-ওলামা ও পীর মাশায়েখকে। যারা পৃথিবীকে আলোর পথ দেখিয়েছেন, এগিয়ে নিয়ে গেছেন মানব সভ্যতাকে।

দ্বীনের অতন্দ্রপ্রহরী এসব আলেম যুগ যুগ ধরে শান্তি, কল্যাণ ও সম্প্রীতির বাণী প্রচার করে গেছেন মানুষের মাঝে।
অন্যান্য বছরের তুলনায় ২০২০ সালে তুলনামূলক বেশি আলেমদের হারিয়েছে বাংলাদেশ। সর্বজন শ্রদ্ধেয় আল্লামা শাহ আহমদ শফী ছাড়াও শীর্ষস্থানীয় অনেক আলেম বিদায় নিয়েছেন এ বছর।
বলা হয়ে থাকে, ‘আলেমের মৃত্যু মানে জগতের মৃত্যু’। সে হিসেবে শীর্ষ আলেমদের এ বিদায়ের মিছিল বাংলাদেশের জন্য বিরাট শূন্যতা তৈরি করেছে।

আল্লামা শাহ আহমদ শফী
চট্টগ্রামের হাটহাজারী মাদ্রাসার সাবেক মহাপরিচালক ও হেফাজতে ইসলামের আমীর আল্লামা শাহ আহমদ শফী গত ১৮ সেপ্টেম্বর সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় ঢাকার আজগর আলী হাসপাতালে ইন্তেকাল করেন। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল প্রায় ১০৩ বছর। শাহ আহমদ শফীর জন্ম চট্টগ্রামের রাঙ্গুনিয়া উপজেলার পাখিয়ারটিলা গ্রামে।
১৯৮৬ সালে হাটহাজারী মাদ্রাসায় মহাপরিচালক পদে যোগ দেন তিনি। এরপর থেকে টানা ৩৪ বছর ধরে তিনি ওই পদে ছিলেন।

শেষ দিন পর্যন্ত হাটহাজারী মাদ্রাসার মহাপরিচালক ও শায়খুল হাদিসের দায়িত্বের পাশাপাশি হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের আমীর, বাংলাদেশ কওমী মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ড বেফাক ও আল হাইয়াতুল উলইয়া লিল জামিয়াতুল কওমীয়া বাংলাদেশের চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন আল্লামা শফী।

ওলীকুল সম্রাট ছিলেন ও যুগ শ্রেষ্ঠ মুহাদ্দিস আল্লামা শফী ছিলেন সমকালিন মুসলিম দুনিয়ার অবিসংবাদিত নেতা। সবার কাছে গ্রহণযোগ্যতার বিচারে তিনি ছিলেন অনন্য উচ্চতায় সমাসীন।

আল্লামা নূর হোসাইন কাসেমী
কওমি মাদ্রাসা শিক্ষাবোর্ড বেফাকের কো-চেয়ারম্যান আল্লামা নূর হোসাইন কাসেমী চিকিৎসাধীন অবস্থায় গত ১৩ ডিসেম্বর দুপুর ১টায় ইন্তেকাল করেন। ১৯৪৬ সালের ১০ জানুয়ারি কুমিল্লা জেলার মনোহরগঞ্জে তার জন্ম।

১৯৮৮ সালে ‘জামিয়া মাদানিয়া, বারিধারা মাদ্রাসা প্রতিষ্ঠা করেন তিনি। মাওলানা কাসেমী একইসঙ্গে ছিলেন একজন আদর্শ শিক্ষক, রাজনীতিবিদ ও আধ্যাত্মিক রাহবার। তিনি প্রায় ৪৫টি মাদ্রাসা পরিচালনার কাজে যুক্ত ছিলেন।

তাবলিগের প্রবীণ মুরব্বি মাওলানা মোজাম্মেল হক
৮ ফেব্রুয়ারি মৃত্যুবরণ করেন তাবলিগ জামাতের শীর্ষ মুরুব্বি ও কাকরাইল মারকাজের প্রবীণ শুরা সদস্য মাওলানা মোজাম্মেল হক।
বাংলাদেশে তাবলিগ জামাতের সবচেয়ে প্রবীণ আলেম ও এ শুরা সদস্য মুফতিয়ে আজম ফয়জুল্লাহ (রহ.)-এর অন্যতম খলিফা ছিলেন।
মরহুম মাওলানা মোজাম্মেল হক তাবলিগের বাংলাদেশের সবচেয়ে প্রবীণ আলেম ও শুরা সদস্য ছিলেন।

তাবলিগ জামাতের তৃতীয় বিশ্ব আমীর হযরতজী মাওলানা এনামুল হাসান (রহ.)-কর্তৃক গঠিত বাংলাদেশের তাবলিগ জামাতের কেন্দ্রীয় শুরার সর্বশেষ জীবিত সদস্য ছিলেন তিনি।

আল্লামা আযহার আলী আনোয়ার শাহ
আল্লামা আযহার আলী আনোয়ার শাহ গত ২৯ জানুয়ারি ইন্তেকাল করেন। তিনি ছিলেন কিশোরগঞ্জের ঐতিহাসিক শহীদী মসজিদের খতিব ও আল জামিয়াতুল ইমদাদিয়া মাদ্রাসার মহাপরিচালক এবং বেফাকুল মাদারিসিল আরাবিয়া বাংলাদেশের সহসভাপতি।

মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৭৭ বছর। প্রাজ্ঞ আলেম, সুবক্তা, চমৎকার কোরআন তেলাওয়াত ও মুফাসসিরে কোরআন হিসেবে মাওলানা আনোয়ার শাহ দেশব্যাপী পরিচিত ছিলেন।

আল্লামা আবদুল মোমিন
ব্রিটিশ বিরোধি আন্দোলনের নেতা শাইখুল ইসলাম সায়্যিদ হোসাইন আহমদ মাদানির (রহ.) খলিফা, জমিয়তে উলামায়ে ইসলামের সভাপতি ও জামেয়া দারুল কোরআন সিলেটের শাইখুল হাদিস, প্রখ্যাত বুজুর্গ পীরে কামেল আল্লামা শাহ আবদুল মোমিন (শায়খে ইমামবাড়ি) ৮ এপ্রিল দিবাগত রাতে ইন্তেকাল করেন। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ১০০ বছর। তিনি আজীবন বহু মসজিদ মাদরাসা ও দ্বীনি সংগঠনের সঙ্গে জড়িত ছিলেন।

সেজদারত অবস্থায় আল্লামা শাহ তৈয়বের ইন্তেকাল
চট্টগ্রামের ঐতিহ্যবাহী কওমি মাদ্রাসা আল জামিয়াতুল আরাবিয়াতুল ইসলামিয়া জিরির মুহতামিম আল্লামা শাহ্ তৈয়ব ২৪ মে দিবাগত রাত দেড়টায় জায়নামাজে সেজদারত অবস্থায় ইন্তেকাল করেন।

৭৯ বছর বয়সী প্রবীণ এই আলেম বেফাকুল মাদারিসিল আরাবিয়া বাংলাদেশের সহ-সভাপতি ছিলেন। ৩৬ বছর তিনি জিরি মাদ্রাসার মুহতামিমের দায়িত্ব পালন করেছেন।

আল্লামা তাফাজ্জুল হক হবিগঞ্জী
জামেয়া আরাবিয়া ইসলামিয়া উমেদনগর হবিগঞ্জের প্রিন্সিপাল ও শায়খুল হাদিস আল্লামা হাফেজ তাফাজ্জুল হক হবিগঞ্জী ৫ জানুয়ারি ইন্তেকাল করেন। তিনি ১৯৪৪ সালে হবিগঞ্জ সদর উপজেলার কাটাখালি গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন।

তিনি একাধারে শীর্ষস্থানীয় হাদিস বিশারদ, রাজনীতিক ও আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন মুফাসসিরে কোরআন হিসেবে দেশ বিদেশে খ্যাতি লাভ করেছিলেন।

আল্লামা শাহ মুহাম্মদ ইদ্রিস
চট্টগ্রাম নাজিরহাট বড় মাদ্রাসার মুহতামিম ও শাইখুল হাদিস আল্লামা শাহ মুহাম্মদ ইদ্রিস ২৭ মে, বুধবার দিবাগত রাত ১২টা ৩০ মিনিটে চট্টগ্রাম ইন্তেকাল করেন। ২০০৪ সালে থেকে নাজিরহাট মাদ্রাসার মুহতামিমের দায়িত্ব পালন করে আসছিলেন তিনি।

মাওলানা আবদুল লতিফ নেজামী
দেশের প্রবীণ রাজনীতিবীদ, ইসলামী ঐক্যজোট চেয়ারম্যান ও নেজামে ইসলাম পার্টির সভাপতি মাওলানা আব্দুল লতিফ নেজামী ১১ মে রাত সাড়ে আটটায় ইন্তেকাল করেন। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৮৪ বছর। তিনি দৈনিক সরকার পত্রিকার সম্পাদক ও প্রকাশক ছিলেন।

মাওলানা জুবায়ের আহমদ আনসারী
নন্দিত মুফাসসিরে কোরআন মাওলানা জুবায়ের আহমদ আনসারী ১৭ এপ্রিল ইন্তেকাল করেন। তিনি ব্রাহ্মণবাড়িয়া বেড়তলা জামিয়া রাহমানিয়ার প্রতিষ্ঠাতা প্রিন্সিপাল ছিলেন।

মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিলো ৭০ বছর। তিনি বাংলাদেশের একজন প্রখ্যাত ওয়ায়েজ। প্রায় তিন যুগেরও বেশি সময় ধরে দেশ বিদেশে দ্বীনের প্রচারে কাজ করে গেছেন।

অধ্যক্ষ গোলাম সারোয়ার সাঈদী
২১ নভেম্বর সুপরিচিত ধর্মীয় বক্তা অধ্যক্ষ গোলাম সারোয়ার সাঈদী ইন্তেকাল করেন। দীর্ঘ ১৬ দিন হাসপাতালে নীবিড় পর্যবেক্ষণ কেন্দ্রে (আইসিইউ) চিকিৎসাধীন থেকে অবশেষে মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়েন তিনি।

গোলাম সরওয়ার সাঈদী ছিলেন একজন পীরজাদা। ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার কসবা উপজেলার প্রাণ কেন্দ্রে অবস্থিত আড়াইবাড়ী দরবার শরীফের প্রয়াত পীর সাহেব আল্লামা হযরত মাওলানা শাহ মুহাম্মদ গোলাম হাক্কানীর (রহ.)-এর সুযোগ্য সন্তান তিনি। এছাড়া আড়াইবাড়ী দরবার শরীফের প্রতিষ্ঠাতা আল্লামা হযরত মাওলানা আবু সাঈদ আসগর আহমাদ আল-কাদেরী (র.) -এর নাতি তিনি।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পাস করা পড়াশোনা করা মাওলানা মো. গোলাম সারোয়ার সাঈদী বিগত কয়েক বছরে ইউটিউব চ্যানেলে ইসলাম বিষয়ক নানা বিষয়ে বয়ান করতেন। এসব বয়ান তাকে বিশেষ পরিচিতি এনে দিয়েছে।-যুগান্তর