Breaking News

ভ্যাকসিন দিতে ভালো মানের বেসরকারি হাসপাতালও যুক্ত হতে পারে



স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেছেন, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থাসহ অন্যান্য সংস্থার অনুমোদন প্রক্রিয়া সম্পন্ন হলে আগামী জানুয়ারির শেষ দিকে অথবা ফেব্রুয়ারির শুরুর দিকেই দেশে করোনাভাইরাসের ভ্যাকসিন দেয়ার কাজ শুরু হবে। আর এতে সরকারের পাশাপাশি দেশের ভালো মানের বেসরকারি খাতকেও যুক্ত করা হতে পারে।

মঙ্গলবার (২৯ ডিসেম্বর) সন্ধ্যায় বাংলাদেশ প্রাইভেট মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশন আয়োজিত ‘করোনার দ্বিতীয় ঢেউ মোকাবিলা ও কভিড-১৯ এর নতুন স্টেইন (পরিবর্তিত রূপ) ছড়ানো নিয়ন্ত্রণ’ শীর্ষক এক ভার্চুয়াল সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে তিনি এসব কথা বলেন।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, করোনাভাইরাস মোকাবিলায় সরকারের সব প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে। চুক্তি স্বাক্ষর থেকে শুরু করে ভ্যাকসিন প্রদান প্রক্রিয়ার জন্য যেসব প্রক্রিয়া আছে তার জন্যেও স্বাস্থ্যখাত কাজ করেছে।জাহিদ মালেক বলেন, মহামারি করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে অনেক কিছু থেমে গেলেও দেশের স্বাস্থ্যখাত কখনো থামেনি। আগামীতেও থেমে থাকবে না।

তিনি আরও বলেন, দেশের হাজারও শিক্ষার্থীর ভবিষ্যৎ জীবন থেকে যেন একটি বছর নষ্ট হয়ে না যায় সেজন্য সামনেই এমবিবিএস ভর্তি পরীক্ষার কাজ শুরু করা হবে।

প্রাইভেট মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি মুবিন খানের সভাপতিত্বে সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন দুর্যোগ ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী ডা. মো. এনামুর রহমান, প্রাইভেট মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশনের মহাসচিব ও আনোয়ার খান মেডিকেলের প্রতিষ্ঠাতা আনোয়ার খান, স্বাস্থ্য শিক্ষা বিভাগের সচিব আলী নূর, স্বাস্থ্য অধিদফতরের মহাপরিচালক প্রফেসর এবিএম খুরশিদ আলমসহ দেশের ৭০টি প্রাইভেট মেডিকেলের প্রতিষ্ঠাতা ও সভাপতিরা।

সভায় করোনাভাইরাস মোকাবিলায় দেশের প্রাইভেট মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশনের আওতাধীন চিকিৎসা সেবা কেন্দ্রগুলো গত ৫ জুন থেকে মানুষকে সেবা দেয়ায় সংশ্লিষ্ট সবাইকে ধন্যবাদ জানান স্বাস্থ্যমন্ত্রী ও ত্রাণমন্ত্রী। মুবিন খান সভায় স্বাস্থ্যমন্ত্রীকে করোনা মোকাবিলায় সাহসী উদ্যোগ নেয়ার জন্য ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।

এ সময় করোনাভাইরাসের দ্বিতীয় ঢেউ শুরু হলে এবং করোনার পরিবর্তিত রূপ দেশে চলে এলে তার জন্য প্রাইভেট মেডিকেল হাসপাতালগুলোকে এগিয়ে আসার আহ্বান জানান স্বাস্থ্যমন্ত্রী। সেই সঙ্গে তিনি প্রাইভেট মেডিকেল হাসপাতালগুলোকে সরকারি হাসপাতালের মতো চিকিৎসা বিলের তালিকা প্রকাশ করে রাখারও অনুরোধ জানান।