Breaking News

‘মাদ্রাসার শিক্ষক-ছাত্রদের উসকানি দিচ্ছে বাবুনগরী’



হেফাজতে ইসলামের আমির জোনায়েদ বাবুনগরী হাটহাজারী মাদ্রাসাকে ব্যবহার করে মাদ্রাসার শিক্ষক ও ছাত্রদের উসকানি দিচ্ছে বলে অভিযোগ করেছেন সংগঠনটির সদ্য প্রয়াত আমির আল্লামা শাহ আহমদ শফীর পরিবারের সদস্যরা।
শনিবার (২৬ ডিসেম্বর) দুপুরে, চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এ অভিযোগ করেন শফীর শ্যালক ও শফী হত্যা মামলার বাদি মো. মঈন উদ্দিন।

এসময় তিনি বলেন, জুনায়েদ বাবুনগরী ও তার অনুসারীরা আল্লামা শফীর মত তাকে ও তার ভাগিনা আনাছ মাদানীকে হত্যা করবে বলে তার তিন ছেলেকে অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে তাদের সাজানো বক্তব্য দিতে বাধ্য করেছিলো। যা ইতোমধ্যে ভিডিও বার্তার মাধ্যমে আনাছ মাদানী সেদিন কোন পরিবেশের বক্তব্য দিতে বাধ্য হয়েছিলো তা দেশবাসীকে জানিয়েছে।

শফীকে হত্যা করার পর তার পরিবার যাতে সত্য প্রকাশ করতে না পারে তার জন্য বাবুনগরীর অনুসারীরা তাদের হত্যার হুমকি দিচ্ছে জানিয়ে মঈন উদ্দিন আরো বলেন, কোর্টে মামলা দায়েরের পর মামলা তুলে নিতেও নানাভাবে চাপ প্রয়োগ করছে বাবুনগরী ও তার অনুসারীরা।

উল্লেখ্য, হেফাজতের প্রয়াত আমির আল্লামা শফীকে পরিকল্পিতভাবে হত্যার অভিযোগে ৩৬ জনের বিরুদ্ধে আদালতে মামলা করা হয়েছে। এই মামলা আমলে নিয়ে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনকে (পিবিআই) তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন আদালত। মামলার অভিযোগে বলা হয়েছে, আল্লামা আহমদ শফীকে হত্যার জন্য ১১ অক্টোবর ফটিকছড়িতে বৈঠক করেন মামুনুল হক। এরপর ১৭ অক্টোবর হাটহাজারী মাদ্রাসায় ঢুকে আল্লামা শফীকে চরমভাবে মানসিক নির্যাতন করা হয়। এমনকি অসুস্থ আহমদ শফীকে চিকিৎসার জন্য মাদ্রাসা থেকে বের করে আনার সময় অ্যাম্বুলেন্স আটকে দিয়ে তার মৃত্যু ত্বরান্বিত করা হয়েছে বলে অভিযোগ আনা হয়েছে।