Breaking News

সরে দাঁড়ালেন আকবরের আইনজীবী



সিলেটে রায়হান হত্যা মামলার প্রধান আসামি বরখাস্ত হওয়া এসআই আকবরের পক্ষে লড়বেন না অ্যাডভোকেট মো. মিসবাউর রহমান আলম। বৃহস্পতিবার আকবরের পক্ষে না দাঁড়ানোর সিদ্ধান্ত নেন তিনি।
এর আগে আকবরের পক্ষে কেউ লড়বেন না বলে ঘোষণা দিয়েছিল জেলা আইনজীবী সমিতি। কিন্তু সেই ঘোষণার পরও আকবরের পক্ষে ১০ ডিসেম্বর ওকালতনামা জমা দেন মিসবাউর। এরপর শুরু হয় নানা সমালোচনা।

অ্যাডভোকেট মিসবাউর রহমান আলম বলেন, টাকার লোভে নয়, পেশাগত দায়িত্ববোধ থেকেই এ মামলাটি নিয়েছিলাম। হেফাজতে মৃত্যু নিবারণ আইনের মামলাটি আমার কাছে একেবারেই নতুন ও চ্যালেঞ্জের ছিল।

তিনি বলেন, আইনি সহায়তা পাওয়া প্রত্যেক মানুষের মৌলিক অধিকার। কোনো আসামিকে আত্মপক্ষ সমর্থনের সুযোগ না দিয়ে দণ্ডিত করা যায় না। এ ধরনের মামলায় কোনো আসামিপক্ষ আইনজীবী না পেলে রাষ্ট্রপক্ষ দিতে বাধ্য। কোনো কারণে আইনজীবী পেতে ব্যর্থ হলে পুরো বিচার প্রক্রিয়াই আটকে যাবে। এতে বিচার প্রার্থীই ক্ষতিগ্রস্থ হবেন। অনেকেই আমার শ্রদ্ধাভাজন সিনিয়রকে জড়িয়ে বিরূপ মন্তব্য করায় আকবরের পক্ষে আইনি লড়াই থেকে সরে দাঁড়াই।

সিলেটের বন্দরবাজার পুলিশ ফাঁড়িতে নির্যাতনের কারণে ১১ অক্টোবর সকালে ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে মারা যান নগরীর আখালিয়া এলাকার বাসিন্দা রায়হান আহমদ। এ ঘটনায় কোতোয়ালি থানায় মামলা করেন রায়হানের স্ত্রী তামান্না আক্তার। মামলার পর ১২ অক্টোবর বন্দরবাজার ফাঁড়ির ইনচার্জ এসআই আকবর হোসেন ভূঁইয়াসহ চারজনকে সাময়িক বরখাস্ত ও তিনজনকে প্রত্যাহার করা হয়।

পরবর্তীতে বিভিন্ন সময়ে আরো পাঁচজনকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। মামলায় এ পর্যন্ত কারাগারে রয়েছেন পাঁচজন। চলতি মাসেই আলোচিত এ মামলার চার্জশিট দেবে তদন্তকারী সংস্থা পিবিআই।