দ্বিতীয় প্রস্তুতি ম্যাচে কোহলির অনুপস্থিতি নিয়ে প্রশ্ন



ওয়ানডে, টি-২০ সিরিজ অতীত। অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে এবার টেস্ট যুদ্ধে নামবে টিম ইন্ডিয়া। অ্যাডিলেডে পিংক বল টেস্ট দিয়েই শুরু হবে সিরিজ। তার আগে অবশ্যই ভারতীয় দলকে চিন্তায় রাখবে দলের ব্যাটিং ফর্ম। কারণ সিরিজের আগে দ্বিতীয় প্রস্তুতি ম্যাচেই বড়সড় প্রশ্নচিহ্ন উঠে গেল ভারতীয় ব্যাটিং লাইন আপ নিয়ে। অস্ট্রেলিয়া ‘‌এ’‌ দলের দ্বিতীয় সারির বোলারদের বিরুদ্ধেই রীতিমতো ধস নামল। শেষপর্যন্ত টিম ইন্ডিয়ার সম্মান বাঁচালেন ব্যাটসম্যান জসপ্রীত বুমরাহ এবং মহম্মদ সিরাজ। অনন্য নজিরও গড়লেন জসপ্রীত। তবে শুধু ব্যাটিং বিপর্যয় নয়, প্রশ্ন উঠছে দ্বিতীয় প্রস্তুতি ম্যাচে বিরাটের না খেলা নিয়েও।

স্ত্রী অনুষ্কা সন্তানসম্ভবা। তাই অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে প্রথম টেস্ট খেলেই দেশে ফিরবেন অধিনায়ক বিরাট কোহলি। সেই টেস্টটি হবে দিন-রাতের। অর্থাৎ পিংক বলে। দ্বিতীয় প্রস্তুতি ম্যাচ তাই পিংক বলেই খেলা হচ্ছে। অথচ এদিন ম্যাচের প্রথম দিনই টিম লিস্ট দেখে অবাক হন ক্রীড়াবিশেষজ্ঞরা। দেখা যায়, বিশ্রামে ভারত অধিনায়ক। স্বভাবতই প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে, বিরাট তো একটি টেস্ট খেলে দেশে ফিরবেন,‌ তাহলে কেন প্রস্তুতি ম্যাচে খেললেন না? এর আগে ভারত মাত্র একটি গোলাপি বলের টেস্ট খেলেছে। তাই সবার অনুশীলন প্রয়োজন। অধিনায়ক বিরাটেরও কি অনুশীলনের জন্যই এই ম্যাচ খেলা উচিত ছিল না? ভারত অধিনায়কের অনুপস্থিতিতে শন অ্যাবট–ক্যামেরন গ্রিনদের সামনে অসহায় আত্মসমর্পণ করলেন ভারতীয় ব্যাটসম্যানরা। শুরুতে ওপেনার পৃথ্বী শ (৪০‌) এবং তিন নম্বরে নামা শুভমন গিল (‌৪৩) রান পেলেও ব্যর্থ হন মায়াঙ্ক (‌২), হনুমা বিহারী (‌১৫), অধিনায়ক রাহানে (‌৪)‌, ঋষভ পন্থ (৫‌) এবং ঋদ্ধি (‌০)। ফলে একসময় মনে হচ্ছিল ভারতের রান দেড়শোও পেরোবে না।শেষপর্যন্ত ৪৮.‌৩ ওভারে ১৯৩ রানে অলআউট হয় ভারত। অজি বোলারদের মধ্যে শন অ্যাবট ও জ্যাক উইল্ডারমাথ তিনটি করে উইকেট পান।

শেষ উইকেটে অবশ্য প্রতিরোধ গড়ে তোলেন জসপ্রীত বুমরাহ এবং মহম্মদ সিরাজ। নবদীপ সাইনি যখন আউট হন, তখন টিম ইন্ডিয়ার রান ছিল ৯ উইকেটে ১২৩। সেখান থেকে শেষ উইকেটে ৭১ রান যোগ করেন সিরাজ–বুমরাহ। সিরাজ ২২ রানে আউট হলেও বুমরাহ অপরাজিত থাকেন অনবদ্য ৫৫ রান করে। প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে এটিই তাঁর প্রথম অর্ধশতরান। যে বুমরাহ বল হাতে বিপক্ষ ব্যাটসম্যানের কাছে ত্রাস। সেই তিনিই এদিন ব্যাট হাতে মান বাঁচালেন দলের।

বুমরাহকে যোগ্যসঙ্গত দেন মহম্মদ সিরাজও। তবে অন্য একটি কারণে আপাতত এই ভারতীয় পেসার শিরোনামে। খেলার মাঠে তাঁর স্পোর্টসম্যান সুলভ আচরণের প্রশংসায় সবাই। ঘটনাটি ঠিক কি?‌ ভারতের ইনিংসের তখন ৪৫ তম ওভার। বল করতে আসেন ক্যামেরন গ্রিন। কিন্তু প্রথম বলেই বুমরাহর জোরালো শট সোজা গিয়ে লাগে গ্রিনের মাথায়। তখনই মাটিতে পড়ে যান ওই অজি ক্রিকেটার। বল সেসময় ‘‌ডেড’ না হলেও নিজের উইকেটের তোয়াক্কা না করেই ব্যাট ফেলে গ্রিনের কাছে সবার আগে ছুটে যান সিরাজ। জিজ্ঞাসা করেন গ্রিন ঠিক আছেন কিনা। এরপরই আম্পায়াররা খেলা কিছুক্ষণের জন্য বন্ধ করেন। মাঠে আসেন অজি দলের চিকিৎসকও‌। মাঠ থেকে বের করে নিয়ে যাওয়া হয় গ্রিনকে। তখন সবারই মনে ফিল হিউজের স্মৃতি। এদিকে, ওই মুহূর্তের ভিডিওটি সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হতেই সিরাজের এই কাজের প্রশংসায় পঞ্চমুখ নেটিজেনরা। অনেকেই টুইটও করেন।