Breaking News

মনোবল হারাননি আফগান কোচ



গত এপ্রিলে কেপ টাউনে কেটে ফেলতে হয়েছে ৫৯ বছর বয়সী সাবেক এই ইংলিশ ক্রিকেটারের এক পায়ের অংশ। ক্রিকেট ওয়েবসাইট ক্রিকবাজকে মোলস বলেছেন, মানসিকভাবে তিনি যথেষ্টই চাঙা আছেন।

পায়ের সংক্রমণ হয়ে উঠছিল প্রাণঘাতী। তাই বাঁ হাঁটুর নিচ থেকে কেটে ফেলতে হয়েছে পা। তবে মস্তিষ্ক তো আর কাটা পড়েনি! আফগানিস্তানের ডিরেক্টর অব ক্রিকেট অ্যান্ডি মোলস আত্মবিশ্বাসী, পা হারালেও থমকে যাবে না কোচ হিসেবে তার পথচলা।

“নিজের করণীয় নিয়ে কোনো সংশয়ই আমার নেই। আমি হাঁটুর নিচ থেকে আমার পা হারিয়েছি, কিন্তু মস্তিষ্ক হারাইনি। ক্রিকেট জ্ঞান হারিয়ে ফেলিনি। আমার ক্রিকেটীয় কার্যক্রমের কথা বললে, আমি এটিকে কোনো প্রতিবন্ধকতা হিসেবেই দেখছি না।”

মোলসের পায়ের সমস্যার শুরু আরও কয়েক মাস আগে। আফগানিস্তান দল তখন বাংলাদেশ সফরের প্রস্তুতি নিচ্ছিল আবু ধাবিতে। মোলস তখন ছিলেন দলের ভারপ্রাপ্ত কোচের দায়িত্বে।

৪৭ ডিগ্রি তাপমাত্রায় ৫ কিলোমিটার হাঁটার পর পায়ে প্রচণ্ড জ্বালা অনুভব করছিলেন। দেখলেন, পায়ের পাতা পুড়ে গেছে। সেখান থেকে পরে সংক্রমণ। গত সেপ্টেম্বরে যখন বাংলাদেশ সফরে এসেছিল আফগানিস্তান, মোলস হাঁটছিলেন ক্রাচে ভর দিয়ে। অবস্থা খারাপ হওয়ায় এক পর্যায়ে বাংলাদেশেই হাসপাতালে ভর্তি ছিলেন কিছুদিন।

পরে মোলস ভেবেছিলেন, পা ঠিক হয়ে গেছে। কিছুদিন স্বাভাবিকও ছিলেন। গত মার্চে ভারতে আয়ারল্যান্ডের সঙ্গে সিরিজের সময়ে আবার ফিরে আসে সমস্যা। চিকিৎসার জন্য উড়ে যান দক্ষিণ আফ্রিকায়। শুরুতে তার পায়ের পাতা প্রতিস্থাপন করা হয়। কিন্তু সমস্যা যায় না তাতেও, সংক্রমণ যে ছড়িয়ে পড়েছে!