ত্রাণ চুরি হয়ে নেতাদের পকেটে যাচ্ছে: ইশরাক



করোনা ভাইরাসের এ মহামারি পরিস্থিতিতে সরকারের পক্ষ থেকে দেশব্যাপী ত্রাণের ব্যবস্থা করা হলেও সেগুলো অসহায় মানুষের কাছে যাচ্ছে না। তার বেশির ভাগই চুরি হয়ে যাচ্ছে সরকারদলীয় নেতাদের পকেটে- এমন অভিযোগ করেছেন ঢাকার সাবেক প্রয়াত মেয়র সাদেক হোসেন খোকার ছেলে প্রকৌশলী ইশরাক হোসেন।

তিনি বলেন, সারা দেশকেই করোনা ঝুঁকিপূর্ণ ঘোষণা করে লকডাউনের আওতায় আনা হয়েছে। ফলে কর্মহীন হয়ে পড়েছে দেশের জনগণের বড় একটি অংশ। এর প্রেক্ষিতে প্রতিটি পাড়ায় পাড়ায় ক্ষুধার্ত মানুষের আর্তনাদ-আহাজারি বাড়ছেই। ক্ষুধার তাড়নায় অনেকেই এ লকডাউনেও বাধ্য হয়ে একটু খাবারের আশায় রাস্তায় রাস্তায় ঘুরছে।

মঙ্গলবার (২৮ এপ্রিল) এক ভিডিও বার্তায় তিনি এমন অবস্থায় সব ভেদাভেদ ভুলে সবাইকে সবার জায়গা থেকে এগিয়ে আসার আহ্বান জানিয়েছেন।

ইশরাক অভিযোগ করে বলেন, ইতোমধ্যেই এইসব ত্রাণ চুরির ঘটনায় হাতেনাতে ধরা পড়েছে তাদের অসংখ্য নেতাকর্মী। বাংলাদেশে করোনা শনাক্তের কেবল এক মাস অতিবাহিত হতে চললো তাতেই এ অবস্থা, তাহলে জানিনা আমাদের সামনের দিনগুলোতে কী অপেক্ষা করছে।

এমন পরিস্থিতিতে সাদেক হোসেন খোকা ফাউন্ডেশনের পক্ষ থেকে অসহায় মানুষকে ত্রাণ সহায়তা পৌঁছে দেয়া হচ্ছে উল্লেখ করে ইশরাক বলেন, আমার বাবা মরহুম সাদেক হোসেন খোকা, বেঁচে থাকলে আজ আপনাদের এই বিপদের দিনে আপনাদের পাশে দাঁড়াতেন। আজ তার ছেলে হিসেবে আমি আছি আপনাদের পাশে।

তিনি জানান, ইতোমধ্যে ৫ হাজার পরিবারকে খাদ্য সহায়তা পৌঁছে দিয়েছি আমাদের ফাউন্ডেশনের পক্ষ থেকে। এর মধ্যে সম্পূর্ণ পারিবাভিকভাবে নিজস্ব অর্থায়নে এক হাজার, সরাসরি অন্যদের সহযোগিতায় ২ হাজার এবং বিএনপির বিভিন্ন ইউনিটের নেতাকর্মীদের মাধ্যমে আরো প্রায় সাড়ে তিন হাজার অসহায় পরিবারের হাতে তুলে দেয়া হয়েছে প্রয়োজনীয় খাবার ও সুরক্ষা সমাগ্রী।

তবে সামনে আরও ভয়াবহ সময় আসছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, এ রমজান উপলক্ষে কোনো মানুষ খাবারের অভাবে যেন না কাতরায়। এ জন্য সাদেক হোসেন খোকা ফাউন্ডেশনের পক্ষ থেকে আমরা বেশ কিছু উদ্যোগ গ্রহণ করেছি। আমরা চাই নগরের প্রত্যেকটি অসহায় মানুষের কাছে একটা করে রমজান প্যাকেজ তুলে দিতে, যাতে করে এই পবিত্র রমজান মাসে কাউকে অন্তত না খেয়ে রোজা রাখতে না হয় বলেও জানান তিনি।

ইশরাক বলেন, এজন্য আপনারাও চাইলে আমাদের এই মহতি উদ‌্যোগের অংশীদার হতে পারেন, তাহলে হয়তো আমরা সবাই মিলে একসাথে অনেক পরিবারের পাশে দাঁড়াতে সক্ষম হব।