Breaking News

রংপুরের মুচি রবিদাস ত্রাণ তহবিলে ২০ হাজার টাকা দিলেন



করোনা মহামারীতে বিত্তবানরা যখন অমানবিক হয়ে খাদ্য মজুদ করে কোয়ারেন্টাইনে, ঠিক সেই মুহূর্তে রংপুরের মিঠাপুকুরে দলিত সম্প্রদায়ের মিলন রবিদাস নামের এক ব্যক্তি ২০ হাজার টাকা প্রধানমন্ত্রীর করোনা ফান্ডে জমা দিয়ে মানবিকতার এক ভিন্ন রকম দৃষ্টান্ত তৈরি করলেন।

সোমবার সন্ধ্যায় মিলন রবিদাস নামের ওই ব্যক্তি মিঠাপুকুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয়ে উপস্থিত হয়ে ২০ হাজার টাকা প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে দান করেন।

মিঠাপুকুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মামুন ভূঁইয়া জানান, মিলন রবিদাস উপজেলার লতিফপুর ইউনিয়ন এর আব্দুল্লাপুর গ্রামে মতিলালের পুত্র। উপজেলা ক্যাম্পাসে জুতা সেলাই এর কাজ করতেন তিনি। টাকা হল দীর্ঘদিন ধরে ঘর বানানোর জন্য টাকা জমানো শুরু করেন। জমে তা হয়েছিল ২০ হাজার। করোনা পরিস্থিতিতে ঘর না বানিয়ে তিনি সমুদয় টাকা সোমবার প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে দেয়ার জন্য আমার কাছে জমা দেন।

জানতে চাইলে মিলন রবিদাস জানান, জুতা সেলাই করে কিছু টাকা জমিয়েছি ঘর করার জন্য। কিন্তু করোনায় মানুষ না খেয়ে মরছে। আমার ঘরের থেকে মানুষের জীবন বড়। সে কারণে আমি প্রধানমন্ত্রীর কাছে আমার জমানো ২০ হাজার টাকা দিলাম।

লতিফপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ইদ্রিস আলী মন্ডল জানান, প্রায় ২০ বছর আগে রবি দাস এর বাবা মতিলাল মারা যান। এরপর মিঠাপুকুর উপজেলা পরিষদের পাশে জুতা সেলাইয়ের দোকান দিয়ে বসেন তিনি। যেখান থেকে যা আয় হয় তা দিয়েই মা, স্ত্রী, এক ছেলে ও এক মেয়ে নিয়ে চাচার জমিতে বাস করছেন। মেয়ে চতুর্থ শ্রেণিতে এবং ছেলে প্রথম শ্রেণিতে পড়ছে। জুতা সেলাই করে দুই শতক জমি কেনেন রবিদাস। কিন্তু এখনও বাড়ি বানানো হয়নি তার। বাড়ি বানানোর জন্যই টাকা জমা করে শুরু করেছিলেন রবিদাস।