Breaking News

সুস্থ হলেও চোখে লুকিয়ে থাকতে পারে করোনা!



করোনাভাইরাস থাকতে পারে চোখেও। চোখের থেকেও ছড়াতে পারে সংক্রমণ। সুস্থও হয়ে ওঠার পরেও আক্রান্তের চোখের মধ্যে নভেল করোনার জীবাণু লুকিয়ে থাকতে পারে বলে দাবি করছেন চিকিৎসকদের একাংশ। ফলে দেখা দিতে পারে কংজাইটিভাইটিস। সম্প্রতি ইতালিতে অনলাইনে প্রকাশিত এক মেডিক্যাল জার্নালে এমন তথ্য উঠে এসেছে। যার জেরে নতুন করে চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে।

জানা গেছে, ইতালির প্রথম করে্ানা আক্রান্তের চোখে বাসা বেঁধেছিল এই মারণ জীবাণু। ৬৫ বছরের ওই নারী চীনের উহান প্রদেশ থেকে ফিরেছিলেন। এর পাঁচদিনের মাথায় তাঁর দেহে একাধিক উপসর্গ দেখা দেয়। সঙ্গে সঙ্গে তাঁকে হাসপাতালে ভরতি করা হয়। প্রথমদিকে শুকনো কাশি, গলা ব্যথা, নাকে অসম্ভব জ্বালা দেখা দেয়। একইসঙ্গে তাঁর চোখে কংজাইটিভাইটিসের উপসর্গও ধরা পড়ে। পরে লালারস পরীক্ষা করে দেখা যায়, তিনি করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন।

হাসপাতাল সূত্রে খবর, আক্রান্ত হওয়ার তিনদিনের মাথায় তাঁর চোখ থেকে সোয়্যাবের নমুনা সংগ্রহ করেন চিকিৎসকরা। সেই নমুনায় করোনার জীবাণুর আরএনএ’র হদিশ মেলে। হাসপাতালে তিনি যতদিন ছিলেন, সেইসময় একটানা তাঁর চোখ দিয়ে পানি পড়ত।

ইতালির গবেষক জানান, কোনও রোগী সুস্থ হয়ে উঠার ২১ দিন পরেও তাঁর চোখে করোনার জীবাণু থাকতে পারে। সেখান থেকে এই মারণ রোগের সংক্রমণ ছড়াতেও পারে। এমনকি সেই সময় নাক থেকে সংগৃহীত নমুণায় করোনার জীবাণু না-ও থাকতে পারে। কিন্তু চোখের জলে ক্রমাগত বংশবিস্তার করতে পারে এই মারণ জীবাণু। তাই এই সময় ঘনঘন চোখ-নাক-মুখ স্পর্শ করতে বারণ করছেন চিকিৎসকরা।

ইতালির ওই আক্রান্তের সুস্থ হয়ে ওঠার ২৭ দিন পরেও চোখের তরলে করোনার হদিশ মিলেছিল।