ত্রাণ শব্দে নারাজ, রোজার উপহার বললেন ডিপজল



করোনাভাইরাসের প্রকোপে টালমাটাল বিশ্ব। বাড়ছে মৃত্যুর মিছিল। জীবন বাঁচাতে ঘরে অবস্থান করছেন বেশিরভাগ মানুষ। দেশে দেশে চলছে লকডাউন। বাংলাদেশও করোনার প্রভাব থেকে মুক্ত নয়। এতে বিপাকে পড়েছেন খেটে খাওয়া মানুষ। কাজ নেই তো ভাত নেই অবস্থা!

এরই মধ্যে প্রায় এক হাজার পরিবারকে নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য বিতরণ করেছেন জনপ্রিয় অভিনেতা মনোয়ার হোসেন ডিপজল। সাভারের রাজফুলবাড়িয়া এলাকায় নিজ শুটিংবাড়ি ডিপু ভিলায় এক হাজার পরিবারকে ত্রাণসামগ্রী তুলে দেন তিনি। এ ছাড়া দুস্থ শিল্পীদের জন্য তিনি বিএফডিসির শিল্পী সমিতিতে ত্রাণ দিয়েছেন।

গতকাল বুধবার ৩৫০ শিল্পী ও ১৫০ জন কলাকুশলীর জন্য নিত্যপ্রয়োজনীয় সামগ্রী পাঠিয়েছেন ডিপজল। বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির মাধ্যমে সেসব এফডিসির বিভিন্ন সমিতিতে ১৫০টি প্যাকেট পাঠানো হয়। আজ বৃহস্পতিবার ৩৫০ জন শিল্পী তাঁদের সমিতি থেকে নিত্যপ্রয়োজনীয় সামগ্রী সংগ্রহ শুরু করেছেন। যাঁরা এফডিসিতে যেতে পারবেন না, তাঁদের ঘরে পৌঁছানোর ব্যবস্থা করবে সমিতি।

তবে ত্রাণ শব্দে নারাজ মনোয়ার হোসেন ডিপজল। উপহার বলতেই স্বাচ্ছন্দ্য তাঁর। এনটিভি অনলাইনকে ডিপজল বলেন, ‘এটা ত্রাণ নয়, আমার সহকর্মীদের জন্য রোজার উপহার। যাঁদের সঙ্গে আমি দীর্ঘদিন ধরে কাজ করছি, তাঁদের জন্য রোজার উপহার পাঠিয়েছি।’

চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির সাধারণ সম্পাদক জায়েদ খান বলেন, ‘ডিপজল ভাই আমাদের শিল্পীদের এর আগেও সহযোগিতা করেছেন। সব সময়ই করে আসছেন। তিনি আমাদের বর্তমান কমিটির অংশ। গতকাল এফডিসিতে কিছু সংগঠনের নেতা এসে ডিপজল ভাইয়ের দেওয়া রোজার উপহার নিয়ে গেছেন। আজ শিল্পীরা এসে এফডিসি থেকে এই উপহার সংগ্রহ করছেন। যাঁরা আসতে পারবেন না, তাঁদের বাড়িতে পাঠানো হবে সমিতির পক্ষ থেকে।’