Breaking News

নরসিংদীতে সাত ম্যাজিস্ট্রেট ও পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাসহ নতুন আক্রান্ত ৩০



নরসিংদীতে জেলা প্রশাসনের সাতজন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট, পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাসহ নতুন আরও ৩০ জন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। এ নিয়ে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ১৩৪ জন।
এর আগে পাঁচজন চিকিৎসক, স্বাস্থ্য বিভাগের ৪৪ জন, ইঞ্জিনিয়ার, সংবাদকর্মী, পরিবার পরিকল্পনা অফিসারসহ আক্রান্ত হন।
৭৭ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হলে নতুন করে যার মধ্যে ৩০ জনের শরীরে কোভিড-১৯ এর উপস্থিতি পাওয়া যায়।

জেলায় সর্বশেষ খবর নরসিংদী জেলা করোনাভাইরাসে প্রতিরোধ ইমার্জেন্সি সেল প্রধান ও অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক ইমরুল কায়েস ও সিভিল সার্জন ইব্রাহীম টিটন এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। এদিকে নরসিংদীতে লকডাউনের ১৩ তম দিন চলছে।

এদিকে নরসিংদীতে সাধারণ মানুষ মানছে না সামাজিক দূরত্ব ও লকডউন। অবাদে প্রয়োজনে-অপ্রয়োজনে ঘুরে বেড়াচ্ছে সাধারণ মানুষ। সড়ক মহাসড়কে চলছে রিকশা,অটো রিকশা ও প্রাইভেট যানবাহন। যে কারণে নরসিংদীতে করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়েই চলছে।
আগে আক্রান্ত অন্যান্যরা চিকিৎসকের নিবিড় পরিচর্যায় ভালো আছেন বলে জানিয়েছেন নরসিংদী জেলা সিভিল সার্জন ডা. ইব্রাহীম টিটন।

বগুড়া জেলা লকডাউন ঘোষণা
করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধে এবার উত্তরবঙ্গের প্রবেশদ্বার খ্যাত বগুড়া জেলাকে লকডাউন ঘোষণা করা হয়েছে।

আজ মঙ্গলবার (২১ এপ্রিল) বিকেলে লকডাউন ঘোষণার পর জেলা প্রশাসক ফয়েজ আহমেদ জানান, বগুড়ায় আদমদিঘি উপজেলার বাসিন্দা এক পুলিশ সদস্যসহ মোট তিনজন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। করোনা যেন সারা জেলায় ছড়িয়ে পড়তে না পারে, এ জন্য পুরো জেলাকে লকডাউন ঘোষণা করা হয়েছে এবং পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত এ আদেশ বলবৎ থাকবে।
লকডাউনের ঘোষণায় বলা হয়, জেলার জাতীয় ও আঞ্চলিক সড়ক, মহাসড়ক ও রেলপথে অন্য কোনও জেলা ও উপজেলা থেকে কেউ জেলায় প্রবেশ ও বের হতে পারবেন না। জেলার অভ্যন্তরে ও আন্তঃজেলার ক্ষেত্রে একই রূপ নিষেধাজ্ঞা বলবৎ থাকবে এবং সব ধরনের পরিবহন ও জনসমাগম বন্ধ থাকবে।
তবে জরুরি পরিষেবা, চিকিৎসাসেবা, কৃষিপণ্য, কৃষিকাজে নিয়োজিত সেবা, খাদ্যদ্রব্য সরবরাহ ও সংগ্রহ ইত্যাদি এর আওতাবহির্ভূত থাকবে বলেও বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করা হয়েছে।