চাল চোরদের ক্ষমা নেই: কাদের



প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে তৃণমূল পর্যন্ত ত্রাণ কার্যক্রম অব্যাহত রাখার কথা জানিয়ে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেন, ত্রাণ বিতরণের নামে কোনো ধরনের বৈষম্য করা চলবে না।

মঙ্গলবার (২১ এপ্রিল) সকালে রাজধানীতে তার সরকারি বাসভবনে ব্রিফিংকালে এ কথা বলেন তিনি।এ সময় চাল চোরদের ক্ষমা নেই বলেও মন্তব্য করেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক।
আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, এই দুর্যোগকালে সংকট মোকাবিলায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তার সাহসিকতা ও পরীক্ষীত নেতৃত্বে জাতি আজ ঐক্যবদ্ধ।

 

 

তিনি বলেন, দলমত নির্বিশেষে সবাইকে এই কার্যক্রম পরিচালনা করতে হবে।
ত্রাণ বিতরণে বাধা দেয়া হচ্ছে বিএনপির এমন অভিযোগ প্রসঙ্গে ওবায়দুল কাদের বলেন, এ অভিযোগ একেবারেই ভিত্তিহীন। তাদের এ অভিযোগের কোনো তথ্য প্রমাণ নেই।
বিএনপিকে নিষ্ক্রিয় করার জন্য তারা নিজেরাই যথেষ্ট, তাদের নেতিবাচক রাজনীতির জন্য আজ তাদের এই পরিণতি বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

লকডাউন নিশ্চিতে গিটার হাতে ফরিদপুর পুলিশের গান

করোনা ভাইরাসের কারণে সংক্রমণের ঝুঁকি এড়াতে মানুষকে ঘরে রাখতে অন্যান্য সংস্থার সঙ্গে দিনরাত কাজ করে চলেছে পুলিশ। তারপরও অনেক ক্ষেত্রে সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করা সম্ভব হচ্ছে না।এবার এই জনসাধারণকে ঘরে রাখতে পথে পথে দেশাত্মবোধক গণসংগীত পরিবেশনের উদ্যোগ নিয়েছে পুলিশ। শহরের বিভিন্ন পাড়া মহল্লায় পৌঁছে তারা গিটার ও দোতারা হাতে এসব গান পরিবেশন করছে।

 

 

বিশেষ করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ফরিদপুরে পুলিশের এই সংগীত পরিবেশন লাইভ করার পর মুহূর্তের মধ্যে তা ভাইরাল হয়ে যায়। ফরিদপুরের সাধারণ নাগরিকেরা করোনা সচেতনতা সৃষ্টিতে পুলিশের এসব কর্মকাণ্ডের ব্যাপক প্রশংসায় মেতে উঠেন।

সোমবার রাতে (২০ এপ্রিল) শহরের সারদা সুন্দরী কলেজের সামনে, ভাঙ্গা রাস্তার মোড়, জনতা ব্যাংকের মোড় ও এভাবে সংগীত পরিবেশন করেন তারা। এ সময় দোতারা হাতে এসআই আনোয়ার হোসেন ও গিটার হাতে সুরের মুর্ছনা ছড়ান।

তাদের সাথে ফরিদপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জামাল পাশাসহ আরো পুলিশ সদস্য অংশ নেন। ফেসবুকে ফরিদপুরের পুলিশের এই সংগীত পরিবেশনের ভিডিও সরাসরি সম্প্রচারে যোগ দেন অসংখ্য দর্শক ও শ্রোতা। তারা পুলিশের এই অভিনব উদ্যোগের ব্যাপক প্রশংসা করেন।

 

 

ফরিদপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জামাল পাশা বলেন, করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ এড়াতে সাধারণ মানুষ যেন বিনা প্রয়োজনে ঘর হতে না বের হয় এবং অতি জরুরি কাজে যারা বের হন তারা যেনো সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে চলাফেরা করেন সেজন্যই আমরা সংগীতের মাধ্যমে তুলে ধরার চেষ্টা করেছি।

ফরিদপুরের পুলিশ সুপার আলিমুজ্জামান (পিপিএম সেবা) বলেন, জনমনে যাতে দাগ কাটে এ জন্যই ফরিদপুরের পুলিশ বিভাগ সড়কে আলপনা এঁকে, গানে গানে জনগণকে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণের ঝুঁকির বিষয়টি বোঝাতে এই উদ্যোগ নিয়েছে।