Breaking News

করোনাভাইরাসে আক্রান্তদের চিকিৎসার জন্য হাসপাতাল তৈরির উদ্যোগ



বসুন্ধরা গ্রুপের মিডিয়া উপদেষ্টা আবু তৈয়ব বলেন, বসুন্ধরা গ্রুপ মানবতার কল্যাণে কাজ করে থাকে। সেই ধারাবাহিকতায় করোনা মহামারিতে মানুষের সেবায় হাসপাতাল তৈরির এই প্রস্তাব দিয়েছে। সরকার চাইলে আজ থেকেই কনভেনশন সেন্টারের ব্যবস্থাপনা বুঝে নিয়ে হাসপাতাল তৈরির কাজ এগিয়ে নিতে পারে। বসুন্ধরা গ্রুপ যে কোনো সময় দায়িত্ব হস্তান্তর করতে প্রস্তুত। করোনা আক্রান্ত মানুষের পাশে দাঁড়াতে বসুন্ধরা গ্রুপ এ প্রস্তাবনা দিয়েছে বলেও জানান তিনি। প্রধানমন্ত্রীর করোনা মোকাবিলা তহবিলে ১০ কোটি টাকার চেক হস্তান্তর করতে গিয়ে সায়েম সোবহান এ প্রস্তাব দেন।

জানা গেছে, রাজধানীর কুড়িলে ইন্টারন্যাশনাল কনভেনশন সিটি বসুন্ধরার (আইসিসিবি) চারটি হল ও একটি ট্রেড সেন্টারকে ৫ হাজার শয্যার হাসপাতালে রূপান্তরিত করতে প্রধানমন্ত্রীর কাছে বসুন্ধরা গ্রুপের চেয়ারম্যান লিখিত প্রস্তাবটি দেন।

করোনা মহামারি মোকাবিলায় প্রধানমন্ত্রীর কাছে দেয়া প্রস্তাবে বলা হয়েছে, আইসিসিবিতে চারটি কনভেনশন সেন্টার ও একটি ট্রেড সেন্টার রয়েছে। এর মধ্যে সবচেয়ে বড় কনভেনশন সেন্টারটির আয়তন ৩০ হাজার স্কয়ার ফুট, বাকি তিনটির প্রত্যেকটির আয়তন ২৪ হাজার স্কয়ার ফুট এবং ট্রেড সেন্টারটি দেড় লাখ স্কয়ার ফুট আয়তনের। এই কনভেনশন সেন্টার পুরো শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত। এখানে আলাদা টয়লেট, রান্নার ব্যবস্থা রয়েছে। সবুজে ঢাকা এই কনভেনশন সেন্টার পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন এবং ঝকঝকে। যে কোন সময় এখানে পরিকল্পিতভাবে কাজ শুরু করা যাবে।

উহানে তিনটি হাসপাতালে মোট শয্যা সংখ্যা ছিলো ৩ হাজার ৫০০টি। সেখানে আইসিসিবিতে ৫ হাজার শয্যা স্থাপন করা সম্ভব। এই কনভেনশন সেন্টারে অবকাঠামো এবং সার্বিক সুবিধা নিশ্চিত থাকায় শুধুমাত্র বিশেষ ব্যবস্থাপনায় শয্যা বসিয়ে এই মহামারি মোকাবেলা করা সম্ভব। নতুন করে হাসপাতাল তৈরির সময় এবং অর্থ অপচয় দুটোই কমবে এখানে চিকিৎসার ব্যবস্থা করতে পারলে। সরকার চাইলে এখনই দক্ষ ব্যবস্থাপনায় ৫ হাজার শয্যা বসিয়ে করোনা আক্রান্ত রোগীদের চিকিৎসা দেয়া সম্ভব বলে জানিয়েছে বসুন্ধরা গ্রুপ কর্তৃপক্ষ।

এর আগে, রাজধানীর তেজগাঁও শিল্প এলাকায় করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগীদের জন্য ৩০১ শয্যাবিশিষ্ট হাসপাতাল নির্মাণের কাজ শুরু করে আকিজ গ্রুপ। এ কাজে প্রথমে বাধা এলেও রোববার নির্মাণকাজ শুরু হয়।