পৌঁছে দিচ্ছে ছাত্রলীগ ঘরে ঘরে বিনামূল্যে শাক-সবজি



সিটি মেয়র ইকরামুল হক বলেন, ছাত্রলীগ নেতাকর্মীদের এই কার্যক্রম ছাত্রলীগের ইমেজ বৃদ্ধি করেছে। অসহায় মানুষের পাশে দাড়িয়ে তারা আবারো প্রমাণ করেছে ছাত্রলীগ সবসময় বিপদে মানুষের আশ্রয়স্থল। ছাত্রলীগ নেতা অনির মতো সবাইকে সাধারণ মানুষের পাশে সহায়তার হাত প্রসারিত করার আহবান জানান তিনি।

মহানগর ছাত্রলীগ নেতা নওশেল আহমেদ অনি নিজস্ব অর্থায়নে ময়মনসিংহ সিটি কর্পোরেশনের ১০ নং ওয়ার্ডের বাসিন্দাদের মাঝে বিনামূল্যে শাক-সবজি বিতরণ করছেন। প্রতিদিন সকালে অনি’র নেতৃত্বে ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা ট্রাকভর্তি শাক-সবজি নিয়ে পৌঁছে যাচ্ছেন মানুষের দুয়ারে দুয়ারে। হাতে হ্যান্ডমাইক নিয়ে ছাত্রলীগ নেতা অনি নিজেই জানান দেন সবজির ট্রাক এসে গেছে, যার যা প্রয়োজন নিয়ে যান। ট্রাকে থরে থরে সাজানো থাকে বেগুন, পটল, ঢেরস, টমেটো, ডাটা, মিষ্টি কুমড়া, চাল কুমড়া, পুইশাক, পাট শাক, লালশাক, লাউ শাক, শসাসহ নানা ধরনের সবজি। ছাত্রলীগ কর্মীরা চাহিদা মতো বাসায় পৌঁছে দেয় এসব শাক-সবজি। আবার অনেকে ট্রাক থেকে নিয়ে যায় নিজেদের পছন্দমতো। ছাত্রলীগের এমন কাজে দারুণ খুশি এলাকাবাসী। এই দুঃসময়ে পাশে দাড়ানোয় প্রশংসায় ভাসছেন ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা। 

১০ নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী মামুন মিয়া, গৃহিনী তাহসিনা খাতুন বলেন, এই পরিস্থিতিতে কোনো রকমে খেয়ে না খেয়ে বেঁচে আছি। না পারছি বলতে, না পারছি কারো কাছে সাহায্য চাইতে। ছাত্রলীগের কর্মীরা বিনামূল্যে শাক-সবজি দিয়ে যাওয়ায় কিছুটা রক্ষা। 

ছাত্রলীগ নেতা নওশেল আহমেদ অনি বলেন, কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ সভাপতি জয় ভাই ও সাধারন সম্পাদক লেখক ভাইয়ের নির্দেশ এই দুঃসময়ে অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়াতে হবে। ময়মনসিংহ সিটি কর্পোরেশনের নগরপিতা ‘ইকরামুল হক টিটু’ ভাইয়ের অঙ্গীকার নগরীর একটি মানুষও না খেয়ে থাকবে না। তাদের এই লক্ষ্য বাস্তবায়নে দরিদ্র, নিম্নমধ্যবিত্ত, মধ্যবিত্ত পরিবার যারা লকডাউনে রয়েছে তাদের মাঝে প্রধানমন্ত্রীর সামান্য উপহার পৌঁছে দেয়া হচ্ছে। কিন্তু তারা ভাতের সাথে কি খাবে? এই চিন্তা থেকে নগরীর ১০নং ওয়ার্ডে প্রাথমিকভাবে কাঁচা তরকারি-সবজি বিনামূল্যে বিতরণ শুরু করেছি। পরবর্তীতে পর্যায়ক্রমে নগরীর ৩৩টি ওয়ার্ডে এই কার্যক্রম শুরু করা হবে।