Breaking News

এটিএন বাংলার চেয়ারম্যান ’ড. মাহফুজের জামাতা করোনায় মারা গেলেন

করোনায় মারা গেলেন- মহামা রি করোনাভাইরা’সে আক্রা ন্ত হয়ে মা রা গেছেন এটিএন বাংলার চেয়ারম্যান ড. মাহফুজুর রহমানের জামাতা জাবেদ আলম। তিনি নিউইয়র্কের কুইন্স হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন। নিউইয়র্ক থেকে তার সহকর্মী মোসলেহ উদ্দিন এ খবর জানিয়েছেন।

জাবেদ আলম ড. মাহফুজুর রহমানের মেয়ে মারুফা রহমানে স্বামী। তিনি স্ত্রীসহ নিউইয়র্কে থাকতেন। জানা গেছে, কয়েকদিন আগে জাবেদ আলম অসু’স্থ হলে তাকে কুইন্স হা’সপা’তালে ভর্তি করা হয়। তাকে সেখানে আইসোলেশনে রাখা হয়। দিন দিন তার অবস্থা অবনতি হতে থাকে। সোমবার তার মৃ ত্যু হয়।এদিকে সবশেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত যুক্তরাষ্ট্রে করোনায় ৩ হাজার ৭৭৪ জনের মৃ ত্যু হয়েছে। প্রসঙ্গত, গত ডিসেম্বরে চীনের উহানে করোনাভা’ইরা’সের উৎপত্তি হয়। এখন পর্যন্ত এই ভা’ইরা’সের প্রতিষেধক তৈরি করা যায়নি।

এমন নগরী হয়তো কেউ আগে দেখেনি। যে নগর জেগে থাকে নিত্য কোলাহলে। ভোরের আলো দেখার আগেই রাস্তায় হাজারো গাড়ির শব্দ, সেখানে আজ লা শের সারি। এক দিনে নিউইয়র্ক নগরীর লা শের মিছিলে যোগ হয়েছেন আটজন স্বদেশি। এ ছাড়া মিশিগানের ড্রেটয়েট সিটি ও নিউজার্সির প্যাটারসনে দুই বাংলাদেশি নারীর মৃ ত্যু সংবাদ পাওয়া গেছে।

নাইন–ইলেভেনের পর এমন নি’র্ম’মতার সাক্ষী হবে নিউইয়র্কবাসী, সেটা হয়তো কেউ কল্পনা করেনি। মৃ ত্যুর মিছিলে এখন বাংলাদেশিরা। বাড়ছে আত ঙ্ক, উৎকণ্ঠা। চারদিকে শুধু চা’পা ক ষ্ট, কখন কী হয়ে যায়?প্রা’ণঘাতী করোনাভা’ইরা’সে গত ২৪ ঘণ্টায় নিউইয়র্কে আটজন বাংলাদেশির মৃ ত্যু হয়েছে। এ নিয়ে করোনায় আক্রা ন্ত হয়ে নিউইয় র্কে ২১ বাংলাদেশির মৃ ত্যুর তথ্য নিশ্চিত হওয়া গেছে। দেশটিতে সর্বমোট ২৩ জন বাংলাদেশির মৃ ত্যু হয়েছে।

করোনায় আক্রা ন্ত হয়ে ২৮ মার্চ মৃ ত্যু হয়েছে কায়কোবাদ, শফিকুর রহমান মজুমদার, আজিজুর রহমান, মির্জা হুদা, বিজিত কুমার সাহা, মো. শিপন হোসাইন, জায়েদ আলম ও মুতাব্বির চৌধুরী ইসমত। এ ছাড়া মিশিগান অঙ্গরাজ্যের ড্রেটয়েট সিটি ও নিউজার্সির প্যাটারসনে দুই বাংলাদেশি নারীর মৃ ত্যুর সংবাদ পাওয়া গেছে। তাঁদের দুজনের দেশের বাড়ি বৃহত্তর সিলেটে বলে জানা গেছে।

এক দিনে করোনাভাইরাসে এত প্রবাসী বাংলাদেশির মৃ ত্যুর ঘটনায় কমিউনিটিতে শো’কের ছায়া নেমে এসেছে। শো’কে স্তব্ধ কমিউনিটিতে অনেক প্রবাসীর করোনায় আক্রা ন্ত হওয়ার খবরও পাওয়া গেছে। এর মধ্যে বাংলা সংবাদমাধ্যমের ইলিয়াস খসরু, ফরিদ আলম, স্বপন হাই ছাড়াও চিকিৎসক ওসমানী, সাবেক ছাত্রনেতা শাহাব উদ্দিন, কমিউনিটি নেতা ফরহাদ আহমেদ চৌধুরীসহ অনেকের জন্য স্বজনেরা দোয়া প্রার্থনা করেছেন।

আমেরিকায় সর্বশেষ করোনাভা’ইরা’সে আক্রা ন্ত হয়ে ২ হাজার ৪৮৪ জনের মৃ ত্যু হয়েছে। আক্রা ন্ত হয়েছেন ১ লাখ ৪২ হাজার ৪ জন। নিউইয়র্ক রাজ্যে সবচেয়ে বেশি আক্রা ন্ত হয়েছেন। এ পর্যন্ত করোনায় নিউইয়র্কে আক্রা ন্ত মানুষের সংখ্যা ৫৯ হাজার ৬৪৮। এতে মৃ ত্যু হয়েছে ৯৬৫ জনের।

৩০ মার্চ নিউইয়র্কে ৫ জন, নিউজার্সিতে একজন ও মিশিগানে একজন প্রবাসী বাংলাদেশির মৃ ত্যুর খবর পাওয়া গেছে।

নিউইয়র্কে ব্যাপকভাবে করোনা ভা’ইরা’স ছড়িয়ে পড়েছে। নগরের বিভিন্ন এলাকায় বসবাসরত প্রায় প্রতিটি পরিবারের কোনো স্বজন বা পরিচিত মানুষ এই ভা’ইরা’সে আক্রা ন্ত হয়ে পড়েছেন। আক্রা ন্ত ও মৃ ত্যু সংখ্যা নিয়ে সংবাদমাধ্যম ও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমের প্রচারে অনেকেই অজানা আত ঙ্কে ভু’গছেন। অনেকেই ভা’রা’সে আক্রা ন্ত হয়ে ঘরে ফিরছেন বা ঘরে কোনো চি’কিৎ’সা ছাড়াই সুস্থ হয়ে উঠেছেন।

৩০ মার্চ করোনা ভা’ইরা’সে আক্রা ন্ত হয়ে কুইন্সে ওজনপার্কের বাসিন্দা আনোয়ারুল আলম চৌধুরী (৭৫), জ্যামাইকার হিলসাইডে বসবাসরত নিশাত চৌধুরী (৩০), ব্রুকলিনের বাসিন্দা মুক্তিযো দ্ধা মো. ইব্রাহীম, জ্যামাইকার বাসিন্দা খালেদ হাসমত (৬০) ও আলোকচিত্রী সাংবাদিক স্বপন হাই নিউইয়র্কে মা রা গেছেন। নিউজার্সি অঙ্গরাজ্যে বসবাসরত আলী আকবর নামের এক বাংলাদেশির মৃ ত্যু হয়েছে।