কত লাশ ওখান থেকে বেরিয়ে এল এখন আর লাশ গুনি না



করোনাভাইরাসের এমনই ভয়াবহ চিত্র তুলে ধরেছেন বদলে যাওয়া নিউইয়র্ক শহরে বাস করার অ্যালিক্স মন্টেলিওন ও তার প্রেমিক মার্ক কজলো।আমরা শুনতে পাচ্ছি বাইরে খুব চিৎকার চেঁচামেচি হচ্ছে যা থেকেই ধারণা করতে পারি, ভেতরের পরিস্থিতি কতটা খারাপ। কত লাশ ওখান থেকে বেরিয়ে এল তা গোনা এখন ছেড়ে দিয়েছি। এটা খুবই ভয়াবহ দৃশ্য। কিন্তু এটাই বাস্তব।’

বার্তা সংস্থা রয়টার্সকে দেয়া এক ভিডিও বার্তায় এসব অভিজ্ঞতা তুলে ধরেন তারা।  নিউইয়র্কের ব্রুকলিন অ্যাপার্টমেন্টের বাসিন্দা মন্টেলিওন ও কজলো। বাইরে বেরোতে পারছেন না তারা। তাই প্রিয় শহরটা এই সময়ে কেমন আছে, তা জানতে জানালা খোলা রেখে দিয়েছেন তারা।

করোনাভাইরাসের এমনই ভয়াবহ চিত্র তুলে ধরেছেন বদলে যাওয়া নিউইয়র্ক শহরে বাস করার অ্যালিক্স মন্টেলিওন ও তার প্রেমিক মার্ক কজলো।

বার্তা সংস্থা রয়টার্সকে দেয়া এক ভিডিও বার্তায় এসব অভিজ্ঞতা তুলে ধরেন তারা।  নিউইয়র্কের ব্রুকলিন অ্যাপার্টমেন্টের বাসিন্দা মন্টেলিওন ও কজলো। বাইরে বেরোতে পারছেন না তারা। তাই প্রিয় শহরটা এই সময়ে কেমন আছে, তা জানতে জানালা খোলা রেখে দিয়েছেন তারা।